দেশে ৩৭ শতাংশ মানুষ দারিদ্র সীমার নিচে বাস করছে

image_90636_0বর্তমানে আমাদের দেশের ৩৭ শতাংশ মানুষ দারিদ্র সীমার নিচে বাস করছে। তা কমিয়ে আনার জন্য বর্তমান সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে বলে জানালেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।রোববার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ‘বাজেট ভাবনা: সংগ্রামে উন্নয়নে দারিদ্র বিমোচনে মা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।বিশ্ব মা দিবস উপলক্ষে বেসরকারি সংস্থা ডরপ ও দৈনিক ইত্তেফাক এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্পিকার শিরীন শারমিন বলেন, ‘সামাজিক নিরাপত্তা কার্যক্রমে যে অর্থ বরাদ্দ হয় তা আমাদের নিজস্ব বাজেট থেকে। অন্য কারো কাছ থেকে তা আসে না। বর্তমান সরকারের সময়ে ৪০টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগ জেন্ডার সংবেদনশীল বাজেটের আওতায় এসেছে।’বর্তমানে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে একজন নারী উদ্যোক্তা ২৫ লাখ টাকা লোন নিতে পারে বলেও জানান তিনি।এ সময় নিজের মাকে স্মরণ করে তিনি বলেন, ‘অংকে একটু দূর্বল ছিলাম। চেষ্টা ছিল কিভাবে আরো ভালো করতে পারি। পরবর্তীতে এসএসসিতে ৯৭ পেয়েছি। এ সাফল্যের সব অবদান মায়েরই।’সভার বিশেষ অতিথি অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান এমপি বলেন, ‘আগামি বাজেট হবে আড়াই লাখ কোটি টাকার বাজেট। এ বাজেটের প্রধান বার্তা হবে, মানবসম্পদের উন্নয়ন। স্বাস্থ্য, শিক্ষা, নারী, শিশু, প্রতিবন্ধী উন্নয়নের বাজেট।’তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার ইতিবাচক হস্তক্ষেপের মাধ্যমে নারীদের সামনে আনার চেষ্টা করছে। গ্রামের স্কুলগুলোতে মেয়েদের প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে।’সংসদ সদস্য শিরীন আক্তার বলেন, ‘শুধু পোশাকই নয়, নির্মাণ, কৃষি সব জায়গায় নারীরা অনেক বেশি সংখ্যায় কাজ করছে। তবে ঝুঁকিপূর্ণ মাতৃত্ব এখনও রয়েছে। এটা কমাতে আমাদের বিশেষ নজর দেয়া প্রয়োজন।’সংসদ সদস্য কেয়া চৌধুরী বলেন, ‘নারীর স্বাস্থ্য, পুষ্টি ও গ্রামাঞ্চলে স্যানিটেশনের ওপর বর্তমান সরকার আগামি বাজেটে গুরুত্ব আরোপ করেছে।’অ্যাকশন অ্যাইড বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ফারহা কবির বলেন, ‘অনেক সময় দেখা যায় অর্থ বরাদ্দ থাকলেও সঠিকভাবে বিনিয়োগ হচ্ছে না।’এ সময় বক্তারা বাজেটে স্বাস্থ্যখাতে বরাদ্দ বাড়ানো এবং নারীবান্ধব বাজেট করার জন্য পরামর্শ দেন।দৈনিক ইত্তেফাকের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক তাসমিমা হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ভাস্কর্য শিল্পী ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিনী, কবি রুবী রহমান, র‌্যাবের মিডিয়া উইংয়ের কর্মকর্তা অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার সাদিরা খাতুন, ডিএমপির সিনিয়র সহকারি পুলিশ কমিশনার মুক্তা ধর, সাংবাদিক নাদিম কাদের, সঙ্গীত শিল্পী ফাহমিদা নবী প্রমুখ।মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন ডরপ প্রতিষ্ঠাতা এএইচএম নোমান ও দৈনিক ইত্তেফাকের মহিলা অঙ্গণের বিভাগীয় সম্পাদক রাবেয়া বেবী।