রংপুরের গঙ্গাচড়ায় হিন্দুদের ওপর হামলায় প্রতিবাদ সভা

 

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজগত ১৭ নবেম্বর শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় রংপুরের গঙ্গাচড়া থানার হিন্দু অধ্যুষিত হরকলি   ঠাকুর পাড়া গ্রামে কথিত ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতে হিন্দুদের ওপর হামলা, বাড়ি ঘর ,উপাসনালয়ে লুটতরাজ ও আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেওয়ার ঘটনায় এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয় জামাইকাস্থত সান্তামেডিকেল সেন্টারে ।  প্রচণ্ড ঠাণ্ডাকে উপেখ্যা করে শহরের বিভিন্ন স্থান থেকে লেখক, ডাক্তার ,অধ্যাপক, বিজ্ঞানি, গুণী শিল্পী সহ সমাজের বিশিষ্ট জনেরা উক্ত সভায় উপস্থিত হন ।  ড অধ্যাপক ড.সব্যসাচী ঘোষ দস্তিদারের সভাপতিত্বে ও প্রদীপ মালাকারের উপস্থাপনায় উপস্থিত বক্তাগন  রংপুরের ঠাকুর পাড়া , শালেয়াশা,বালিয়াপাড়াসহ ১৫ টি বাড়ীতে হামলা, লুটতরাজ ও আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়ায় প্রচণ্ড ক্ষোভ প্রকাশ করে এবং দ্রুত দোষীদের গ্রেপ্তার ও  ক্ষতিগ্রস্থদের  সাহায্যের জন্য আবেদন জানায় ।  তারা সাতক্ষীরা,চত্রগ্রামের

নন্দীরহাট , চিলির হাট, রামু ,গতবারের ব্রান্মনবাড়িয়া জিলার নাসিরনগর এবং রংপুরের ঠাকুর পাড়ার ঘটনা একই সূত্রে গাথা । ভুয়া ফেসবুক একাউনট বানিয়ে পরিকল্পিতভাবে কিছু সংখ্যালঘু

যুবকের ওপর মিথ্যা ধর্মীয় অনুভুতির আঘাতে  ধর্মান্ধ গুষ্টি হিন্দুদের ওপর একের পর এক হামলা চালিয়ে তাদের বাড়ি ঘর আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া ,উপাসনালয় ধ্বংস, লুটতরাজ ও নারীর ওপর নির্যাতনে সরকার  প্রতিটি ক্ষেত্রে  তাদের রক্ষ্যা করতে ব্যর্থ হচ্ছে । প্রতিটি ঘটনার আগে ভিকটিমরা  যথা সময়ে আইনশ্রখলা বাহিনী ও প্রশাসনকে জানানো সত্বে ও এগিয়ে  আসেনি ।যদি সময়  মতো  এগিয়ে  আসতো জানমাল রক্ষ্যা পেত । বক্তারা আরও বলেন , ১৯৭২ সালে রমনা কালী মন্দির ভাঙ্গা ও মন্দিরের জায়গা দখলের মাধ্যমেই রাষ্ট্রীয়ভাবে সানপ্রদায়িকতাকে স্থান দেওয়া হয় । তারা আর ও বলেন , ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের প্রতি বিচারহীনতার সস্ক্রিতিই  তাদের উপর পুনরায় হামলার কারন ।   এক বৎসর পার হয়ে গেলে ও এখনও পুলিশ নাসির নগরের  হামলার মুল আসামিদের ধরতে পারেনি।  অনেক বক্তা প্রধান বিচার প্রতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা{এসকে সিনহা}কে সরকার  জোর  করে দেশ ত্যাগ ও  দুর্নীতির মিথ্যা অপবাদ দিয়ে পদত্যাগে বাধ্য করান ।  প্রধান বিচারপ্রতি সরকারের কথামত কাজ করলে তার চাকুরী ও থাকতো এবং দুর্নীতির অপবাদও হতো না ।

উক্ত সভায় প্রধান ও  বিশেষ  অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন  অউক্য পরিষদ সভাপতি ডাঃ টমাস দুলু রায় ও স্বাধীন বাংলা বেতারের কণ্ঠ যুদবা ও রাষ্ট্রপতির পুরষ্কার প্রাপ্ত শিল্পী  রথিন্দ্র নাথ রায় ।  অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ঢাকা জগনাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক সা;সনপাদক ও নিউইয়কস্থ মহামায়া  মন্দিরের সভাপতি শ্রী শ্যামল চক্রবর্তী , বাপসনিঊজ সম্পাদক হাকিকুল ইসলাম খোকন এবং যুক্তরাষ্ট্র অউক্য পরিষদ ও  মহামায়া মন্দিরের সা; সনপাদক শ্রী প্রদীপ দাস । আরও বক্তব্য রাখেন কমিউনিটি একটিবিস্ট, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক শ্রী নির্মল পাল ,কমিউনিটি একটিবিস্ট শ্রী ধ্রব চক্রবর্তী , অউক্য পরিষদ নেতা ও পুজাউযাপন পরিষদের সভাপতি প্রবীর রায়,  শেফালী ঘোষ দস্তিদার,        পরিমল কর্মকার ,গোবিন্দ দাস , দীপক কর্মকার , প্রণব চক্রবর্তী ,নারায়ণ দেব নাথ ,স্বপন কর্মকার ,হরিদাস মণ্ডল ,মৃত্যুঞ্জয় ভৌমিক, রাজেন সাহা,প্রনবেন্দু চক্রবর্তী ,সুমন বসাক, গৌতম সরকার । তাপস সরকার , দিলিপ গোস্বামী প্রমুখ ।