ভোলার আলগী গ্রামে ভালবাসার ফাঁদ পেতে স্কুল ছাত্রীর পরিবারের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা দাবী

এমডি আবু জাফর, বিশেষ প্রতিনিধি:: ভোলা সদর উপজেলার আলগী গ্রামের এক স্কুল ছাএীকে ভালবাসার ফাঁদ পেতে মোটা অংকের টাকা দাবী করার অভিযোগ পাওয়া গেছে পার্শবর্তি মহল্লার বখাটে যুবক খলিলের বিরুদ্ধে। যৌতুকের টাকা না পেয়ে বিয়ে করতে অস্বীকার করায় মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেছে স্কুল ছাত্রী ফাতেমা। মান সম্মানের ভয়ে ভারসাম্যহীন ওই ছাত্রীকে শিকল দিয়ে বেধে তিন মাস যাবৎ ঘরের ভিতর আটকে রাখা হয়েছে। ২০১৭ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থী একই পরিবারে দুই বোন ফাতেমা ও পান্না ওই বখাটে খলিলের ভয়ে লেখাপড়া ছেড়ে দিয়েছে।

 

এমন অমানুষিক ঘটনা ঘটেছে সদর উপজেলার ধনিয়া ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের ছোট আলগী গ্রামের ইলিয়াস মিয়ার বাড়ীতে। ওই স্কুলছাএীর পারিবারিক সুএে জানা যায়, কয়েক মাস পূর্বে ভোলা পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের মহিলা মাদ্রাসা সড়কের মৃত আবু তাহেরের ছেলে খলিল ফাতেমার ভগ্নি পতির বন্ধু হিসেবে ওই ছাত্রীর বাড়ীতে আসা যাওয়া শুরু করে। এক পর্যায়ে খলিলের ললুপ দৃষ্টি পরে ফাতেমার উপর। কৌশলে ভালবাসা শুরু করে অল্প সময়ে তরুনী ফাতেমার মন জয় করে ফেলেছে। এবার বিযের কথা বলে ৩ লক্ষ টাকা দাবী করে খলিল। এক সপ্তাহের মধ্যে টাকা না দিলে যাদুর প্রভাব দিয়ে ফাতেমাকে পাগল করার হুমকী দিয়ে যায় খলিল। এর কয়েকদিন পর থেকেই ভারসাম্যহীন হয়ে যায় ফাতেমা।