মুরাদনগরের কাজিয়াতলে বিনা মূল্যে উৎসব মুখর পরিবেশে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ উৎসব ‘নতুন বই পেয়ে খুব আনন্দ লাগছে’

মুরাদনগরের কাজিয়াতলে বিনা মূল্যে উৎসব মুখর পরিবেশে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ উৎসব 

মো. শরিফুল আলম চৌধুরী, মুরাদনগর (কুমিল্লা) থেকে: বেলা সাড়ে ১১টা। কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার কাজিয়াতল দক্ষিন পাড়া ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার একদল শিশু মাদ্রাসার বারান্দা থেকে সিঁড়ি ভেয়ে নিচে নেমে আসছে। সবার হাতে নতুন বই। তাদের মধ্যে সবচেয়ে ছোট মারুফ। বুকের মধ্যে বই আগলে ধরে লাফিয়ে লাফিয়ে নামছিল সে। নতুন বই পেয়ে কেমন লাগছে জানতে চাইলে সে বলল, ‘খুব ভালো লাগছে। খুব আনন্দ লাগছে।’ কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার কাজিয়াতল রহমানিয়া এতিমখানায় থাকে মারুফ হোসেন। বাবা ভ্যান চালক কাজ করেন। আর মা গৃহিনী। গতকাল সোমবার বিনা মূল্যে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ উৎসবে মারুফ হোসেনের মতো সব শিশুই নতুন বই হাতে পেয়ে আনন্দে মেতে ওঠে।

সোমবার সকাল সাড়ে ১১টায় কাজিয়াতল ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা মিলনায়তনে আয়োজন করা হয় বিনা মূল্যে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ অনুষ্ঠান। মাদ্রাসার সভাপতি শরিফুল আলম চৌধুরীর সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বই বিতরণ উদ্ভোধন করেন কুমিল্লার মুরাদনগর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহাংগীর আলম, বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন দৈনিক যুগান্তর পত্রিকার কুমিল্লা ব্যুরো প্রধান আবুল খায়ের, মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠাতা মো. ইউনুস মিয়া সরকার, সুপার মোস্তাফিজুর রহমান, আনোয়ার হোসেন মাষ্টার, সমাজ সেবক গোলাম মোস্তফা, কুমিল্লা উত্তর জেলা ওলামালীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হাফেজ শুয়াইবুল হোসেন শাহজাহান মুন্সী ও অভিভাবক আবু ইউসুফ খাঁন প্রমুখ।

কাজিয়াতল দক্ষিন পাড়া ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি মো. শরিফুল আলম চৌধুরী বলেন, ‘আমরা সকাল দশটা থেকে দুই পালায় বেলা দুইটা পর্যন্ত প্রায় শতভাগ শিক্ষার্থীর হাতে বই তুলে দিয়েছি।’ যারা কোনো কারণে মাদ্রাসায় আসতে পারেনি, তারা পরে এলেও বই পাবে। এ মাদ্রসায় শিশু শ্রেণী থেকে দশম শ্রেণী পর্যন্ত ৯শ ৬০ জন শিক্ষার্থী রয়েছে।

সকাল তখন পৌনে এগারোটা। উপজেলার কাজিয়াতল দক্ষিন পাড়া ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রসার মাঠে বসে অপেক্ষা করছিল শিশু থেকে দশম শ্রেণীর শিশুরা। মাদ্রাসার ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী সুমি আক্তার জানায়, নতুন বই পাওয়ার আশায় খুব ভোরে ঘুম থেকে উঠেছে। সকাল নয়টার মধ্যেই সুমি নিজ বাড়ি থেকে থেকে মাদ্রসায় ছুটে আসে। এ ছাড়াও সমাজ সেবক ও বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী শাহজাহান মিয়ার উপস্থিতিতে কাজিয়াতল দক্ষিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কাজিয়াতল উত্তর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কাজিয়াতল রহিম রহমান মোল্লা উচ্চ বিদ্যালয়ে গিয়েও ছাত্রছাত্রীদের বই উৎসবে মেতে থাকতে দেখা যায়।