সুন্দরবনে নৌ পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে বনদস্যু ফরিদ (৩৮) নিহত হয়েছে। ২টি দেশি তৈরি বন্দুক ও দুটি গুলি’সহ অপহৃত ৬ জেলে উদ্ধার।

আল-আমিন শাওন, বাগেরহাট থেকেঃঃ বাগেরহাটের সুন্দরবনে নৌ পুলিশের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ফরিদ (৩৮) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। এ সময় তার কাছ থেকে ২টি দেশি তৈরি বন্দুক ও দুটি গুলি উদ্ধার করা হয়।

নৌ পুলিশ নিহত ফরিদকে সুন্দরবনের বনদস্যু ছোট বাহিনীর সক্রিয় সদস্য বলে দাবি করেছে। মঙ্গলবার ভোরে সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের শরণখোলা রেঞ্জের শেলা নদীতে এই বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করা হয়েছে। তবে নিহত ফরিদের বিস্তারিত পরিচয় জানাতে পারেনি পুলিশ। শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কবিরুল ইসলাম মোল্লা জানান, সুন্দরবনের নদীখালে মাছ শিকারে যাওয়া জেলে নৌকায় বনদস্যুরা ডাকাতি করছে এমন গোঁপন সংবাদের ভিত্তিতে নৌ পুলিশের একটি দল শেলা নদীতে অভিযানে যায়।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

এ সময় বনদস্যুরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে গুলি ছুড়তে শুরু করে। ফলে নৌপুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। বেশ কয়েক মিনিট গুলিবিনিময়ের পর বনদস্যুরা পিছু হটলে পুলিশ সেখানে তল্লাসি চালিয়ে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় মৃত একজনকে উদ্ধার করে।

এ ছাড়া ঘটনাস্থল থেকে দুটি একনলা বন্দুক ও দুটি গুলি উদ্ধার হয়। মঙ্গলবার সকালে শেলা নদীতে মাছ ধরা জেলেরা সেখানে এসে নিহত ব্যাক্তিকে ফরিদ বলে সনাক্ত করেন। নিহত ফরিদ বনদস্যু ছোট বাহিনীর সক্রিয় সদস্য।

সম্প্রতি ছোট নামে এক ব্যক্তি বনদস্যু বাহিনী গড়ে তুলে সুন্দরবনের জেলে, বাওয়ালি ও মৌয়ালদের অস্ত্রের মূখে জিম্মি করে মুক্তিপণ আদায় করছে বলে অভিযোগ রয়েছে বলে জানান ওই পুলিশ কর্মকর্তা। নিহত ফরিদের লাশ বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।##