দুই বাংলার প্রিয় কবি বিদ্যুৎ ভৌমিক- এর দুটি কবিতা

                                                            কবি বিদ্যুৎ ভৌমিক- এর দুটি কবিতা

                                                ***********************************************

এমডি আবু জাফর, বিশেষ প্রতিনিধিঃঃ কবিতা প্রসঙ্গে কিছু কথা~ কিছুদিন আগে কফি হাঊজে বিশেষ এক সমালোচক আমার কবিতা নিয়ে প্রায় ৪৫ মিনিট লেকচার দিয়েছিলেন । তাঁর আলোচনায় মূল উপজীব্য বিষয় ছিল কবি বিদ্যুৎভৌমিকের কবিতায় পরোবাস্তবতা ও হ্যালোসিএসান । এই দুটি বিষয় সত্যি অর্থে আমার ভিতরে-গভীরে কবে থেকে-যে উদয় হয়েছিলো , সেটা অনুধাবন করার স্মৃতি বিস্মৃতি এখন ৫২ বছরে নেই । আসলে মৃত্যু চেতনা নিয়ে অনেক লেখাই অনেক জায়গায় লিখেছি । কবিতার এই দীর্ঘ পথে চলছি ৩০ থেকে ৩৫ বছর । অনেক ঘাত-প্রতিঘাত এই সুদীর্ঘ সময়ে আমার জীবনে এসেছে । কখনো কোন ভাবে ভেঙে পরিনি । ভালোবাসা-ও পেয়েছি , কষ্ট পেয়েছি সমতুল্যে । তবে দুই বাংলার পাঠক বন্ধুরা আমাকে গ্রহণ করেছেন , এবং কবি হিসাবে মেনে নিয়েছেন, এটাই আমার পুরস্কার ।

১)

আকাশ সুন্দরী ও নতুন কিশোর
এই পাতাটি থাকনা সাদা তোমার মত
এই কলমের কথা ও প্রাণ সবটুকু থাক
বুকের মধ্যে নীল জ্যোৎস্না তবুও কেন দুঃখে থাকে ?
আবেগ আঁকা সন্ধ্যা প্রদীপ জ্বালিয়ে রাখে ****
একটা রাতের অন্ধকারে আমিও যেন ভূত – ভূতুড়ে
মন মানেনা তুমি শূন্য বিছানা খালি
আকাশ নীচে সমুদ্রনীল শুকনো বালি !
এবার আমি সবটুকু প্রেম লুকিয়ে রেখে
সংক্ষেপে বলি ভা-লো-বা-সি তুই রাক্ষস
প্রতিটা রাতের নিদ্রা নিয়ে চলছে খেলা
অবুঝ হয়ে তাকিয়ে আছে নতুন কিশোর !!
***********************************

২ )

কথা চরিত্র

খুব একটা বিষণ্ণ মনে হলে তালা খুলি ।

সব বয়সের বিপর্যয় গুলো উপড়ে নিয়ে একান্তে নীরবতাকে খান- খান করি অমল আলোয় ***

সন্ধানী তারাদের বর্ণ- প্রপাত ছায়া চোর দুলে ওঠে বাগ্মী হাওয়ায় —

তবুও নানান শব্দের শ্বাস আমাকে পোড়ায় রাস্তার সরলতা চিরে ; প্রত্যন্তে অবিশ্রামে ছিঁড়ে নেই গদ্যের নিভাঁজ স্বরলিপি ।

খুব একটা ভালো নেই বহতা সময় ,– উড়ান পথে একলা ভ্রমণরত ;

এই কারণেই গোটা দিনটা ডালপালা পেতে আমার কাছে এগিয়ে আসছে । গভীর ইচ্ছায় বুক পেতে আছি ****

তাই গোপনে তালা খুলি ; নিছক বদলে ফেলি ঘুমের ভিতর ঘুমন্ত আঠাশটা বছর

—- নিজেকে মিলিয়ে দেখি , ছাইয়ের নীচে আমার নির্ঘুম যৌবন ।

শেষ একদিন যেখানে আমি জন্মাই- নি একবারও সেখানে গর্ভের ভেতর শিশুটি হাসছে

প্রেতে-দের বিবাহ বাসরে সেই এক সত্য নিলামে কিনেছি ; পৃথিবীর বয়স দেখে তারপর দেঁতো পৃষ্ঠায় রক্ত আঙ্গুল নিয়ে লিখেছি জন্ম- ঋণের ফর্দ ।##

                                                                  **********************************

Categories: আন্তর্জাতিক,টপ নিউজ,প্রধান নিউজ,বিনোদন,মতামত বিশ্লেষণ,শিল্প ও সাহিত্য