আব্দুর রউফ সরদার-এর মৃত্যুতে পশ্চিমবঙ্গ ভারতের বিশিষ্ঠ শিক্ষাবিদ ডঃ মুস্তাফা আব্দুল কাইয়ুমের শোক প্রকাশ।

আবু জাফর, বিশেষ প্রতিনিধিঃঃ আব্দুর রউফ সরদার-এর মৃত্যুতে পশ্চিমবঙ্গ ভারতের বিশিষ্ঠ শিক্ষাবিদ ডঃ মুস্তাফা আব্দুল কাইয়ুমের শোক প্রকাশ। পশ্চিমবঙ্গ ভারতের উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার পশ্চিম দন্ডিরহাট গ্রামের আব্দুর রউফ সরদার মুম্বাইতে কর্মরত থাকা কলীন ৪ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে ইন্তেকাল করেছিলেন। ( ইন্না লিল্লিহে ওয়াইন্না ইলাইহি রজীউন) দাফনের জন্য মরহুম আব্দুর রউফ সরদার এর মৃতদেহ মুম্বাই থেকে একটি বিশেষ ফ্লাইটে ঐ রাতে তিনটার সময় কোলকাতার নেতাজী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌছায়।

এরপর বিমানবন্দর কতৃপক্ষ প্রফেসর মোঃ সুরাজ ইসলাম সহ তাহার অন্যান্য স্বজনদের নিকট রাত ২:০০ am সময়ে তার মৃতদেহ হস্তান্তর করেন। ৬ জানুয়ারি জোহরের নামাজের পর তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। মরহুমের পরিবারের পক্ষ থেকে ডঃ মুস্তাফা আব্দুল কাইয়ূম দেশবাসী তথা সকল শুভানুধ্যায়ীদের নিকট তাহার (আব্দুর রউফ সরদার) রুহের মাগফিরত কামনা করে দোয়া করার জন্য বিশেষ ভাবে আবেদন করেছেন।

পশ্চিমবঙ্গ ভারতের বিশিষ্ঠ এই শিক্ষাবিদ ডঃ মুস্তাফা আব্দুল কাইয়ুম তিনি কোলকাতায় মাওলানা আজাদ কলেজের সাবেক অধ্যাপক।পশ্চিমবঙ্গ ভারতের বিশিষ্ঠ এই শিক্ষাবিদ ডঃ মুস্তাফা আব্দুল কাইয়ুম তিনি শুধু শিক্ষাবিদ নয়, তিনি একজন গবেষক-ও। এক সময়ে বৃটিশ উপ-নিবেশিক শাসন ব্যবস্থার বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করেছিলেন তীতুমীর। তাই সেই তীতুমীর-এর স্মরণে ভারত তথা বাংলাদেশেও রয়েছে বহু প্রতিষ্ঠান। যেমনঃ বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার মহাখালি এলাকায় রয়েছে তীতুমীর কলেজ। আপনারা হয়ত অনেকেই শুনেছেন তীতুমীরের বাঁশের কেল্লা’র কথা।

বৃটিশদের সহিত যুদ্ধ করতে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বর্তমান উত্তর ২৪ পরগনা জেলার হায়দারপুর গ্রামে তীতুমীর গড়ে তুলেছিলেন এই বাঁশের কেল্লা। তাই পশ্চিমবঙ্গ ভারতের বিশিষ্ঠ এই শিক্ষাবিদ ডঃ মুস্তাফা আব্দুল কাইয়ুম। তিনি বর্তমানে তীতুমীরের জীবনীর উপর গবেষনা করছেন।##

 

Categories: আন্তর্জাতিক,টপ নিউজ,ভারত,মতামত বিশ্লেষণ