যৌতুকের টাকা না পেয়ে স্ত্রীর কিডনি বিক্রি

যৌতুকের টাকা না পেয়ে স্ত্রীর কিডনি বিক্রি

যৌতুকের টাকা না দেওয়ায় গোপনে স্ত্রীর কিডনি বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। তবে স্বামী বিশ্বজিতের দাবি, স্ত্রীর অনুমতি নিয়ে সে কিডনি বিক্রি করেছে।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুর্শিদাবাদ জেলা এ ঘটনা ঘটেছে। রিতা সরকার নামে একজন ভুক্তভোগী জানান, তার স্বামী যৌতুক দাবি করে নিয়মিত পারিবারিক কলহ সৃষ্টি করত। দুই বছর আগে অ্যাপেন্ডিসাইটিস অপারেশনের সময় তার স্বামী একটি কিডনী বিক্রি করে দেয়। কিন্তু বিগত দুই বছর ধরে রিতা বিষয়টি বুঝতে পারেনি।

তিনি আরও জানান, কয়েক মাস আগে শারীরিক অবস্থা খারাপ হওয়ার পর তার পরিবার তাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করেছিল। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর ডাক্তার জানিয়েছে, তার ডান পাশের কিডনি নেই।

এ ঘটনায় রিতা আনুষ্ঠানিভাবে অভিযোগ করলে তার স্বামী বিশ্বজিৎ সরকারকে আটক করে পুলিশ, এবং তার বিরুদ্ধে অবৈধভাবে শরীরের অঙ্গ বিক্রি করার অভিযোগে মামলা করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ১৯৬১ সালে ভারতে যৌতুক প্রথা আইনত নিষিদ্ধ করা হলেও দেশটির সামাজিক আচার-রীতিতে এটি এখনও প্রবলভাবে রয়ে গেছে।