বাগেরহাটে পলিনেট ব্যবহার ও ড্রিপ সেচে’র মাধ্যমে পরিকল্পিত ফুলকপি’র চাষ

এমডি আবু জাফর, বিশেষ প্রতিনিধিঃঃ ওয়ালমার্ট এর অর্থায়নে সবজী উৎপাদনশীলতা উন্নয়ন তরান্বিত করন (এভিপিআই) প্রকল্পের আওতায় বাগেরহাটে পলিনেট ব্যবহার ও ড্রিপ সেচ বিষয়ে প্রান্তিক কৃষক-কৃষানী সমন্বয়ে এক মাঠ দিবস করা করা হয়েছে। সদরের যাত্রাপুর বাগদিয়া এলাকায় পরিকল্পিতভাবে ফুলকফি ক্ষেতে পলিনেট ব্যবহার ও পানি সাশ্রয়ী পদ্ধতি হিসাবে ড্রিপ সেচে’র উপর হাতে কলমে প্রশিক্ষনে সফলতা দেখানো হয়েছে মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে। এ পদ্ধতিতে ৭০% পানি ব্যবহার কম করে ফুলকপি’র বাম্পার ফলন পেয়েছে চাষীরা।

ফুলকপি চাষে ব্যবসায়িক সফলতার জন্য সদর উপজেলার বাগদিয়া গ্রামে একজন কৃষানীর বাড়ীতে সোমবার সকালে এ মাঠ দিবস করা হয়। গ্রামের নারী-পুরুষ সমন্বয়ে আনুষ্ঠানিক মাঠ দিবসে প্রধান অতিথি ছিলেন সদর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন কর্মকর্তা সঞ্জয় কুমার দাস। বেসরকারী সংস্থা ওয়ালমার্ট ও আইএফডিসি’র অর্থায়নে এবং কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের সহযোগীতায় অনুষ্ঠিত এ মাঠ দিবসে স্থানীয় মোঃ আঃ মালেক মলঙ্গীর সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন আইএফডিসি’র কো-অর্ডিনেটর কৃষিবিদ শরীফুল আলম মনি, উপ-সহকারী কৃষি-কর্মকর্তা মোঃ হেমায়েত হোসেন, জুনিয়র হর্টিকালচারিষ্ট মোঃ ইকবাল হোসেন, স্থানীয় নারী চাষী পারভীন বেগম, জমিলা বেগম ও চাষী মোঃ আব্দুস সালাম।

বক্তারা বলেন, নিরাপদ খাদ্য উৎপাদনে কৃষিতে সার ও কীটনাশক পরিকল্পিতভাবে ব্যবহার করতে হবে। প্রতিনিয়ত মানুষ বাড়ছে অথচ কৃষি জমি বাড়ছে না। তাই স্বল্প জমিতে প্রযুক্তি ব্যবহার করে বেশী ফলন ফলাতে পলিনেট ও ড্রিপ সেচ ব্যবস্থার মাধ্যমে পরিকল্পিতভাবে চাষ করতে হবে। তাহলেই আমাদের কাংখিত অর্জন হবে। মাঠ দিবসটি সার্বিকভাবে পরিচালনা করেন প্রকল্পের মাঠ সমন্বয়কারী মীর আঃ মান্নান ।##