খেলা হবে ২ দলের রেফারির দায়িত্বে থাকবে নিবার্চন কমিশন মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম

 

 

 

ষ্টাফ রিপোর্টার,মো.জহিরুল ইসলাম,মৌলভীবাজার:: স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ১৪ দলের সমন্বকারী মোহাম্মদ নাসিম এমপি বলেছেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন আলোকিত হয়ে গেছে। সরকার দেশের প্রতিটি জেলায় মেডিক্যাল কলেজ প্রতিষ্ঠা করছে। সেই ধারাবাহিতকায় অচিরেই মৌলভীবাজার জেলায় একটি মেডিক্যাল কলেজ প্রতিষ্ঠা করা হবে। চা শ্রমিকদের টিবি রোগ নিরাময়সহ চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে আলাদা হাসপাতাল তৈরী করা হবে। সংবিধান অনুযায়ী যথাসময়ে শেখ হাসিনার অধীনেই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কোন ফর্মুলা দিয়ে কাজ হবে না।সেই নির্বাচনে জনগনের ভোটে আওয়ামী লীগ বিজয়ী হবে। বিগত বিএনপি সরকার জাতীয় চার নেতা হত্যার বিচার করেনি। বিএনপি সরকারের আমলে বাংলা ভাই, জঙ্গির উত্থান হয়েছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জঙ্গিদের দমন করেছেন। ফলে আমরা এখন শান্তিতে আছি। পার্লামেন্ট মেম্বার থাকাবস্থায় আমরা বিএনপি সরকারের সময়ে মার খেয়েছি। আমাদের মিটিং-মিছিল করতে দেয়া হয়নি। খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আইন করে বাংলার জনগণ ন্যায় বিচার করেছে।

 

 

 

এসময় তিনি আরোও বলেন, দেশের জনগণ শান্তি চায়, উন্নয়ন চায়। জনগণের চাওয়া অনুযায়ী শেখ হাসিনা উন্নয়ন করে যাচ্ছেন।কোন নির্দলীয় সরকারের অধীনে নিবার্চন হবে না। খেলা হবে দুই দলের রেফারির দায়িত্বে থাকবে নিবার্চন কমিশন। নিবার্চন হবে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নিবার্চন হবে আগামী ডিসেম্বরে।তাই উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে ফের নৌকায় ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

আজ শনিবার বিকেলে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে ৩১ থেকে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নবনির্মিত ভবনের উদ্বোধন শেষে সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথাগুলো বলেন। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর (এইচইডি) কর্তৃক বাস্তবায়নে ৮ কোটি ৩২ লক্ষ ৬ হাজার ৭০১ টাকা ব্যয়ে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ভবন নির্মিত হয়।

উপজেলা হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি, সাবেক চিফ হুইপ ও সরকারি প্রতিশ্রুতি সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি, বীর মুক্তিযোদ্ধা উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ এমপি’র সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার-২ আসনের সংসদ সদস্য মো: আব্দুল মতিন, স্বাস্থ্য মন্ত্রীর একান্ত সচিব খাজা আব্দুল হান্নান (যুগ্ম সচিব), সিলেট বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এর পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের পরিচালক মোহাম্মদ কুতুব উদ্দিন (যুগ্ম সচিব), চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর এর তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এ কে এম বদরুল ইসলাম, বাংলাদেশ মেডিক্যাল এসোসিয়েশনের মহাসচিব ডা: এহতেশানুল হক চৌধুরী, স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর, সিলেট বিভাগ এর নির্বাহী প্রকৌশলী কে এম হাসানুজ্জামান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, সিলেট বিভাগ এর পরিচালক ডা: নারায়ন চন্দ্র সাহা, মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান, জেলা প্রশাসক তোফায়েল ইসলাম, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহজালাল, মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি নেছার আহমদ, সাধারণ সম্পাদক মিসবাউর রহমান, কমলগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো: রফিকুর রহমান, কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মাহমুদুল হক, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এম, মোসাদ্দেক আহমেদ মানিক, কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মো: জুয়েল আহমদ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মৌলভীবাজারের সিভিল সার্জন ডা: সত্যকাম চক্রবর্তী। মানপত্র পাঠ করেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ ইয়াহহিয়া। পুরো অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন রহিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমেদ বদরুল ও মেডিক্যাল অফিসার ডা: তারানা জেবিন।

 

 

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম আরো বলেন, আগামী ডিসেম্বর মাসে দেশে ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হবে। আর সেই খেলায় রেফারী হিসাবে দায়িত্ব পালন করবেন নির্বাচন কমিশন। আওয়ামী লীগ খালি মাঠে নির্বাচন করতে চায় না। সাহস থাকলে বিএনপি নির্বাচনে আসেন। দেশে নির্দলীয় সরকার ব্যবস্থা শেষ হয়ে গেছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ২০১৯ সালের একদিন আগেও দেশে নির্বাচন হবে না। আর সাংবিধানিকভাবে শেখ হাসিনার অধীনেই আগামী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দ্রুততম সময়ের মধ্যেই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ক্ষমতার সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে কমলগঞ্জে ডাক্তার নার্স দেয়া হবে।

এর আগে ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যাবিশিষ্ট নবনির্মিত হাসপাতাল ভবনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এমপি ও সাবেক চিফ হুইপ উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ এমপি ।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এমপি হেলিকপ্টারযোগে শনিবার বেলা দেড়টায় কমলগঞ্জে এসে পৌঁছেন। বেলা ২টায় ফিতা কেটে নবনির্মিত ৫০ শয্যা বিশিষ্ট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভবনের উদ্বোধন করেন।

উল্লেখ্য, ৮ কোটি ৩২ লক্ষ ৬ হাজার ৭০১ টাকা ব্যয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর (এইচইডি) কর্তৃক কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে ৩১ থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীতকরণ ও সংস্কার কাজটি বাস্তবায়ন করে মেসার্স পোদ্দার এন্টারপ্রাইজ এন্ড এসসি। কাজ সমাপ্তির সময়সীমা ছিল ১৮ মাস। ২০১৫ সালের ২ মে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীত করণের ভিত্তির প্রস্তর স্থাপন করেছিলেন জাতীয় সংসদের সাবেক চিফ হুইপ, বীর মুক্তিযোদ্ধা উপাধ্যক্ষ মো. আব্দুস শহীদ এমপি।##

 

 

 

Categories: জাতীয়,টপ নিউজ,প্রধান নিউজ,রাজনীতি,সম্পাদকীয়,সারা দেশ,সিলেট,স্বাস্থ্য কথন