অভিনেত্রীদের অনুমতি পেলেই হবে ধর্ষণের শুটিং

বিনোদন ডেস্ক : বলিউড কাঁপছে #মি টু ঝড়ে। ক্রমেই সারা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে এই আন্দোলন। তনুশ্রী দত্তের হাত ধরেই এই ক্যাম্পেইন প্রবেশ করল ভারতে। বলিউডের সঙ্গে যুক্ত নারীদের পাশাপাশি সাধারন নারীরাও মুখ খুলতে শুরু করেছেন।

অমিতাভ বচ্চন, সালমান খান, সাজিদ খান, সুভাষ ঘাই, অনু মালিক, অলোকনাথের মতো আরও অনেকের বিরুদ্ধে উঠছে যৌন হেস্তার অভিযোগ। তবে এর মাঝেও হয়েছে ভেদাভেদ। কারও মতে অভিযুক্তদের মধ্যে সকলে দোষী নন, আবার কারও মতে কিছু মহিলারা #মি টু’র অপব্যবহার করছেন।

এমনি অবস্থায় বলিউডের জনপ্রিয় ভিলেন দলিপ তাহিল আনলেন নতুন মোড়। ‘বাজিগর’র ‘মদন চোপড়া’র চরিত্রে তার অভিনয় আজও দর্শকের কাছে স্মরণীয়। সম্প্রতি তিনি এক সাক্ষাৎকারে যা বললেন তা শুনে সকলেই অবাক।

পরিচালক সুধীর মিশ্রের আগামী ছবিতে একটি ধর্ষণের দৃশ্য শুট করতে হবে তাকে। কিন্তু দলিপ বেঁকে বসেছেন এক শর্ত দিয়ে। সেটি হলো যেই অভিনেত্রীর সঙ্গে ধর্ষণের দৃশ্য শুট হবে তার অনুমতি ছাড়া কিছুতেই সেই দৃশ্য শ্যুট করবেন না তিনি।

Dalip

শুধু তাই নয়, অভিনেত্রীর লিখিত অনুমতিপত্র হাতে না আসা পর্যন্ত ধর্ষণ দৃশ্যে কাজ করবেন না দলিপ।

দৃশ্যটি দলিপের সঙ্গে শুট করতে অভিনেত্রীর যেন কোনো জড়তা না থাকে। এবং সেই অভিনেত্রীর যেন কোনো অভিযোগও না থাকে। #মি টু’র ধাক্কা সম্পর্কে বেশ সচেতন এই অভিনেতা বোঝা গেল। ক্যারিয়ার ও নিজের চরিত্র নিয়ে কোনো রকম রিস্ক নিতে তিনি রাজি নন তিনি।

তবে এই সিদ্ধান্তের পেছনে আসল কারণ হল অভিনেত্রী জয়া প্রদা। বহু বছর আগে জয়া প্রদার সঙ্গে একটি ছবির শুটিং করছিলেন তিনি। জানা গিয়েছিল, ছবিতে একটি ঘনিষ্ঠ দৃশ্য শুট করতে গিয়ে জয়াকে এমনভাবে চেপে ধরেছিলেন দলিপ, যে তাকে ছাডা়নো জয়ার পক্ষে মুশকিল হয়ে গিয়েছিল। তাই তিনি সকলের সামনে দলিপকে থাপ্পড় মেরেছিলেন। সেই ভয়ই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে অনুমান করছেন অনেকে।

Categories: টপ নিউজ,প্রধান নিউজ,বিনোদন

Tags: