ঢাকা ০৩:৩৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ ::
যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম আইএমও এর প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লা’র আদর্শ বাস্তবায়ন তরুনদের উদ্বুদ্ধ করতে হবে নড়াইল-১আসনে আবারো আ’লীগের মনোনয়ন পেলেন বিএম কবিরুল হক মুক্তি খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লা ছিলেন বহুমাত্রিকগুনের অধিকারী : অধ্যাপক ড. এম শমসের আলী ফের নৌকার টিকিট পেলেন রাজী মোহাম্মদ ফখরুল পি‌রোজপু‌রে ফেজবু‌কে স্টাটার্স দি‌য়ে অনার্স পড়ুয়া ছা‌ত্রের আত্মহত্যা যেভাবে জানা যাবে এইচএসসির ফল > How to know HSC result নেত্রকোণা -২ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ওমর ফারুক জনপ্রিয়তার শীর্ষে চাটখিলে যুবলীগের ৫১ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত দিনব্যাপী গণসংযোগ করলেন নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী শাহ্ কুতুবউদ্দিন তালুকদার রুয়েল

কুমিল্লায় প্রাথমিক শিক্ষকদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:০৪:১৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১২ অক্টোবর ২০২১ ১৭৬ বার পড়া হয়েছে
দেশের সময়২৪ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

কুমিল্লা প্রতিনিধিঃ ৮বছর পর প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রনালয় কর্তৃক জাতীয়করণ হওয়া শিক্ষকদের টাইমস্কেল বাতিল, গৃহিত অর্থ ফেরত নেওয়ার নির্দেশের প্রতিবাদে কুমিল্লায় মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক কল্যাণ সমিতি। এতে বিপাকে পড়েছে জেলার সাড়েত ৩ হাজার শিক্ষক। পরে শিক্ষকরা জেলা শিক্ষা অফিসারের নিকট চার দফা দাবী আদায়ে লক্ষ্য একটি স্মারক লিপি প্রদান করেন।

মঙ্গলবার দুপুরে কুমিল্লা টাউনহলের সামনে মানববন্ধনে অংশ নেন জেলার ১৭উপজেলা থেকে আগত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। এসময় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি কুমিল্লা জেলা শাখার সভাপতি মোঃ হাবিবুর রহমান ভূইয়া, সাধারন সম্পাদক কামাল হোসেন, শিক্ষক নেত্রী ফয়জুন্নেসা সীমা।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রাথমিক শিক্ষার মান উন্নয়নে অবহেলিত শিক্ষকদের সামাজিক মর্যাদা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ২০১৩ সালের ৯ জানুয়ারী ঐতিহাসিক ঘোষণার মাধ্যমে ২৬ হাজার ১৯৩ টি বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কর্মরত ১ লাখ ৪ হাজার ৭৭২ জন শিক্ষকের চাকুরী জাতীয়করণ করে।

তবে গত ২০২০ সালের ১২ আগষ্ট অর্থমন্ত্রনালয় কর্তৃক একটি পরিপত্র জারির মাধ্যমে টাইমস্কেল বাতিল পূর্বক,গৃহিত অর্থ ফেরত নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়।

 

এছাড়াও জাতীয়করণকৃত প্রাথমিক শিক্ষকদের জৈষ্ঠতা,পদোন্নতি, টাইমস্কেল ও অবসর গ্রহণকারী শিক্ষকদের ৫০ ভাগ বেসরকারী কার্যকর চাকুরীকালে পিআরএল, লামগ্র্যন্ড, পেনশন ও আনুতোষিক প্রদান করা হচ্ছে না। এতে করে হাজার হাজার শিক্ষক পরিবারে চরম হতাশার সৃষ্টি হয়েছে। এ থেকে পরিত্যানের লক্ষ্যে আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করি।

চার দফা দাবীগুলো হলো – অর্থ মন্ত্রনালয়ের পরিপত্রটি প্রত্যাহার, বেসরকারী ৫০ ভাগ কার্যকর চাকুরীকালের ভিত্তিতে টাইমস্কেল, অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের পি.আর.এল, লামগ্র্যান্ড, পেনশন ও আনুতোষিক প্রদান অব্যহত রাখতে হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

কুমিল্লায় প্রাথমিক শিক্ষকদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান

আপডেট সময় : ০৩:০৪:১৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১২ অক্টোবর ২০২১

কুমিল্লা প্রতিনিধিঃ ৮বছর পর প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রনালয় কর্তৃক জাতীয়করণ হওয়া শিক্ষকদের টাইমস্কেল বাতিল, গৃহিত অর্থ ফেরত নেওয়ার নির্দেশের প্রতিবাদে কুমিল্লায় মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক কল্যাণ সমিতি। এতে বিপাকে পড়েছে জেলার সাড়েত ৩ হাজার শিক্ষক। পরে শিক্ষকরা জেলা শিক্ষা অফিসারের নিকট চার দফা দাবী আদায়ে লক্ষ্য একটি স্মারক লিপি প্রদান করেন।

মঙ্গলবার দুপুরে কুমিল্লা টাউনহলের সামনে মানববন্ধনে অংশ নেন জেলার ১৭উপজেলা থেকে আগত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। এসময় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি কুমিল্লা জেলা শাখার সভাপতি মোঃ হাবিবুর রহমান ভূইয়া, সাধারন সম্পাদক কামাল হোসেন, শিক্ষক নেত্রী ফয়জুন্নেসা সীমা।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রাথমিক শিক্ষার মান উন্নয়নে অবহেলিত শিক্ষকদের সামাজিক মর্যাদা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ২০১৩ সালের ৯ জানুয়ারী ঐতিহাসিক ঘোষণার মাধ্যমে ২৬ হাজার ১৯৩ টি বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কর্মরত ১ লাখ ৪ হাজার ৭৭২ জন শিক্ষকের চাকুরী জাতীয়করণ করে।

তবে গত ২০২০ সালের ১২ আগষ্ট অর্থমন্ত্রনালয় কর্তৃক একটি পরিপত্র জারির মাধ্যমে টাইমস্কেল বাতিল পূর্বক,গৃহিত অর্থ ফেরত নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়।

 

এছাড়াও জাতীয়করণকৃত প্রাথমিক শিক্ষকদের জৈষ্ঠতা,পদোন্নতি, টাইমস্কেল ও অবসর গ্রহণকারী শিক্ষকদের ৫০ ভাগ বেসরকারী কার্যকর চাকুরীকালে পিআরএল, লামগ্র্যন্ড, পেনশন ও আনুতোষিক প্রদান করা হচ্ছে না। এতে করে হাজার হাজার শিক্ষক পরিবারে চরম হতাশার সৃষ্টি হয়েছে। এ থেকে পরিত্যানের লক্ষ্যে আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করি।

চার দফা দাবীগুলো হলো – অর্থ মন্ত্রনালয়ের পরিপত্রটি প্রত্যাহার, বেসরকারী ৫০ ভাগ কার্যকর চাকুরীকালের ভিত্তিতে টাইমস্কেল, অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের পি.আর.এল, লামগ্র্যান্ড, পেনশন ও আনুতোষিক প্রদান অব্যহত রাখতে হবে।