ঢাকা ০৮:৩৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ ::
যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম আইএমও এর প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লা’র আদর্শ বাস্তবায়ন তরুনদের উদ্বুদ্ধ করতে হবে নড়াইল-১আসনে আবারো আ’লীগের মনোনয়ন পেলেন বিএম কবিরুল হক মুক্তি খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লা ছিলেন বহুমাত্রিকগুনের অধিকারী : অধ্যাপক ড. এম শমসের আলী ফের নৌকার টিকিট পেলেন রাজী মোহাম্মদ ফখরুল পি‌রোজপু‌রে ফেজবু‌কে স্টাটার্স দি‌য়ে অনার্স পড়ুয়া ছা‌ত্রের আত্মহত্যা যেভাবে জানা যাবে এইচএসসির ফল > How to know HSC result নেত্রকোণা -২ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ওমর ফারুক জনপ্রিয়তার শীর্ষে চাটখিলে যুবলীগের ৫১ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত দিনব্যাপী গণসংযোগ করলেন নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী শাহ্ কুতুবউদ্দিন তালুকদার রুয়েল

ঝালকঠির সুগন্ধায় শনিবার নতুন কোন লাশের সন্ধান মেলেনি, নিখোঁজ-২৬

জাকির আহমদ চৌধুরী, ঢাকা।
  • আপডেট সময় : ১০:৫৮:১০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ ডিসেম্বর ২০২১ ১৬৬ বার পড়া হয়েছে

ঝালকঠির সুগন্ধায় শনিবার নতুন কোন লাশের সন্ধান মেলেনি, নিখোঁজ-২৬

দেশের সময়২৪ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ঝালকাঠিতে লঞ্চে ভয়বহ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় ২৬জন যাত্রী নিখোজ রয়েছে। শনিবার দিনভর নিখোজ যাত্রীদের উদ্ধারে অভিযান চললেও নতুন মরদেহের সন্ধান মেলেনি। এদিকে এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শনিবার ঝালকাঠি সদর উপজেলার দিয়াকুল এলাকার গ্রাম পুলিশ জাহাঙ্গীর হোসেন বাদী হয়ে সদর থানায় এ মামলাটি দায়ের করেন। সর্বশেষ ৩৮ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আগুনে লঞ্চটির স্টিলের কাঠামো ব্যতিত সব কিছু পুঁড়ে ছাঁই হয়ে গেছে। শনিবার সকাল থেকে ফায়ার সার্ভিস ও কোষ্টগার্ডের ডুবুরী দল নিখোজ যাত্রীদের উদ্ধারের জন্য দিনভর সুগন্ধা ও বিষখালী নদীতে অভিযান চালায়।

কিন্তু শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত তারা কোন মরদেহ উদ্ধার করতে পারেনি। এসময় নিখোজ যাত্রীদের স্বজনরাও ট্রলার নিয়ে নদীতে তাদের স্বজনদের খুজে বেড়িয়েছেন। এদিকে শুক্রবার রাতে বরগুনা জেলা প্রশাসনের কাছে বরগুনা-২ আসনের এমপি শওকত হাসানুর রহমান রিমনের উপস্থিতিতে ঝালকাঠি জেলা প্রশাসন ৩৩টি মরদেহ হস্তান্তর করেন এবং এরপূর্বে সনাক্তকৃত ৫টি মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

শনিবার সকালে জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি ও নৌ পরিবহন মন্ত্রনালয়ের গঠিত কমিটির সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তদন্ত কমিটির প্রধান নৌ পরিবহন মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম সচিব তোফায়েল আহমেদ, কমিটির অপর সদস্য ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক কামাল উদ্দীন ভুইয়া, বরিশাল নৌ পুলিশ সুপার কফিল উদ্দীন, ঝালকাঠি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) নাজমুল আলম, নৌ-পরিবহন (ইঞ্জিনিয়ার) তাইফুর আহমেদ ভুইয়া, মংলা নৌ চলাচল বন্দরের মামুন অর রশিদ ও বিআইডব্লিউটি এর প্রতিনিধি সাইফুল ইসলাম পুড়ে যাওয়া লঞ্চটি পরিদর্শন করেন।

নৌ পরিবহন মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম সচিব তোফায়েল আহমেদ বলেন, দুর্ঘটনা কবলিত লঞ্চে বিআইডব্লিউটি এর যে সংখ্যক যাত্রীর কথা বলেছে, তার চেয়ে লঞ্চে যাত্রী অনেক বেশী ছিল। শনিবার ১১টায় সাবেক নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান অগ্নিকান্ডের স্বীকার লঞ্চটি পদির্শন করেন। এসময় সাবেক মন্ত্রী শাহজাহান খান বলেন, এ ঘটনায় পৃথক ৩টি তদন্ত কমিটি গঠিত হয়েছে। তদন্তে কেউ দোষী সাব্যস্ত হলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উদ্ধারকাজে নেতৃত্বদানকারী বরিশাল ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপসহকারী পরিচালক মো. বেলাল উদ্দীন জানান, নিখোজ যাত্রীদের উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল সুগন্ধা ও বিশখালী নদীতে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। ঝালকাঠি জেলা প্রশাসক মো:জোহর আলী জানান, এ পর্যন্ত ২৬ জন নিখোঁজের তালিকা পাওয়া গেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ঝালকঠির সুগন্ধায় শনিবার নতুন কোন লাশের সন্ধান মেলেনি, নিখোঁজ-২৬

আপডেট সময় : ১০:৫৮:১০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ ডিসেম্বর ২০২১

ঝালকাঠিতে লঞ্চে ভয়বহ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় ২৬জন যাত্রী নিখোজ রয়েছে। শনিবার দিনভর নিখোজ যাত্রীদের উদ্ধারে অভিযান চললেও নতুন মরদেহের সন্ধান মেলেনি। এদিকে এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শনিবার ঝালকাঠি সদর উপজেলার দিয়াকুল এলাকার গ্রাম পুলিশ জাহাঙ্গীর হোসেন বাদী হয়ে সদর থানায় এ মামলাটি দায়ের করেন। সর্বশেষ ৩৮ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আগুনে লঞ্চটির স্টিলের কাঠামো ব্যতিত সব কিছু পুঁড়ে ছাঁই হয়ে গেছে। শনিবার সকাল থেকে ফায়ার সার্ভিস ও কোষ্টগার্ডের ডুবুরী দল নিখোজ যাত্রীদের উদ্ধারের জন্য দিনভর সুগন্ধা ও বিষখালী নদীতে অভিযান চালায়।

কিন্তু শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত তারা কোন মরদেহ উদ্ধার করতে পারেনি। এসময় নিখোজ যাত্রীদের স্বজনরাও ট্রলার নিয়ে নদীতে তাদের স্বজনদের খুজে বেড়িয়েছেন। এদিকে শুক্রবার রাতে বরগুনা জেলা প্রশাসনের কাছে বরগুনা-২ আসনের এমপি শওকত হাসানুর রহমান রিমনের উপস্থিতিতে ঝালকাঠি জেলা প্রশাসন ৩৩টি মরদেহ হস্তান্তর করেন এবং এরপূর্বে সনাক্তকৃত ৫টি মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

শনিবার সকালে জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি ও নৌ পরিবহন মন্ত্রনালয়ের গঠিত কমিটির সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তদন্ত কমিটির প্রধান নৌ পরিবহন মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম সচিব তোফায়েল আহমেদ, কমিটির অপর সদস্য ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক কামাল উদ্দীন ভুইয়া, বরিশাল নৌ পুলিশ সুপার কফিল উদ্দীন, ঝালকাঠি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) নাজমুল আলম, নৌ-পরিবহন (ইঞ্জিনিয়ার) তাইফুর আহমেদ ভুইয়া, মংলা নৌ চলাচল বন্দরের মামুন অর রশিদ ও বিআইডব্লিউটি এর প্রতিনিধি সাইফুল ইসলাম পুড়ে যাওয়া লঞ্চটি পরিদর্শন করেন।

নৌ পরিবহন মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম সচিব তোফায়েল আহমেদ বলেন, দুর্ঘটনা কবলিত লঞ্চে বিআইডব্লিউটি এর যে সংখ্যক যাত্রীর কথা বলেছে, তার চেয়ে লঞ্চে যাত্রী অনেক বেশী ছিল। শনিবার ১১টায় সাবেক নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান অগ্নিকান্ডের স্বীকার লঞ্চটি পদির্শন করেন। এসময় সাবেক মন্ত্রী শাহজাহান খান বলেন, এ ঘটনায় পৃথক ৩টি তদন্ত কমিটি গঠিত হয়েছে। তদন্তে কেউ দোষী সাব্যস্ত হলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উদ্ধারকাজে নেতৃত্বদানকারী বরিশাল ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপসহকারী পরিচালক মো. বেলাল উদ্দীন জানান, নিখোজ যাত্রীদের উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল সুগন্ধা ও বিশখালী নদীতে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। ঝালকাঠি জেলা প্রশাসক মো:জোহর আলী জানান, এ পর্যন্ত ২৬ জন নিখোঁজের তালিকা পাওয়া গেছে।