ঢাকা ০৮:৪২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ ::
যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম আইএমও এর প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লা’র আদর্শ বাস্তবায়ন তরুনদের উদ্বুদ্ধ করতে হবে নড়াইল-১আসনে আবারো আ’লীগের মনোনয়ন পেলেন বিএম কবিরুল হক মুক্তি খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লা ছিলেন বহুমাত্রিকগুনের অধিকারী : অধ্যাপক ড. এম শমসের আলী ফের নৌকার টিকিট পেলেন রাজী মোহাম্মদ ফখরুল পি‌রোজপু‌রে ফেজবু‌কে স্টাটার্স দি‌য়ে অনার্স পড়ুয়া ছা‌ত্রের আত্মহত্যা যেভাবে জানা যাবে এইচএসসির ফল > How to know HSC result নেত্রকোণা -২ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ওমর ফারুক জনপ্রিয়তার শীর্ষে চাটখিলে যুবলীগের ৫১ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত দিনব্যাপী গণসংযোগ করলেন নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী শাহ্ কুতুবউদ্দিন তালুকদার রুয়েল

সুনামগঞ্জ জেলা আ’লীগ সভাপতি ও সম্পাদকের বক্তব্য অগঠনতান্ত্রিক বলেন মন্তব্য নুরুল হুদা মুকুট

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:৫৮:০৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ ২৩৬ বার পড়া হয়েছে
দেশের সময়২৪ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

স্টাফ রিপোর্টারঃ সুনামগঞ্জ জেলা আ’লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী আলহাজ্ব নুরুল হুদা মুকুট বলেছেন, জেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দলীয় শৃঙ্খলা অমান্য করায় গঠনতন্ত্র অনুযায়ী আমাকে জেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি পদসহ দলীয় পদবী থেকে নাকি জেলা আ’লীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক অব্যাহতি প্রদান করেছেন।

সেই সাথে জেলা আ’লীগের কার্যনির্বাহী কমিটি জরুরী সভা আহব্বান করে সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত মোতাবেক আমাকে নাকি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদের মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের অনুরোধ জানানো হয়েছিল। তবে প্রকৃতপক্ষে ওই জরুরী সভায় এ বিষয়ে কোন আলোচনা হয় নি এবং কেউ আমাকে মনোনয়ন প্রত্যাহারের জন্য অনুরোধ ও করে নি। এছাড়াও এই সভায় কোরাম হয়নি। অনেক পদধারি সদস্যদের দাওয়াত করেননি।

জেলা আ’লীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের এ ধরনের বক্তব্য একটি নির্লজ্জ মিথ্যাচার যা অগঠনতান্ত্রিক, অগনতান্ত্রিক, ও এখতিয়ার বহির্ভূত। আমি এসব বে-আইনি কার্যক্রমের তীব্র নিন্দা জানাই। মঙ্গলবার সুনামগঞ্জ জেলা পাবলিক লাইব্রেরী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো জানান, গঠনতন্ত্রের ৪৬ ধারায় বর্ণিত আছে শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে অভিযুক্ত ব্যাক্তিকে কারন দর্শানোর জন্য সুযোগ দানে সাধারন সম্পাদক নোটিশ দিতে বাধ্য থাকবেন। কিন্তু আমাকে এখনো কারন দর্শানোর নোটিশ প্রদান করা হয় নি। নির্বাচনকে সামনে রেখে ভোটরদের বিভ্রান্ত করতেই তারা এ সকল কার্যকলাপ করছেন। তিনি আরো বলেন, আমি কোনদিন ও দলীয় প্রতিকের বিরুদ্ধে নির্বাচন করি নি। যদি আমার প্রতিদ্বন্ধি প্রার্থী দলীয় প্রতিক নৌকা পেতেন তাহলে আমি অবশ্যাই নির্বাচন বর্জন করতাম।

স্থানীয় ও জাতীয় নির্বাচনে জেলা আ’লীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক প্রকাশ্যে নৌকার বিরোধীতা করেছেন বলে তিনি অভিযোগ করেন। তিনি আরও বলেন আগে তাদের বহিষ্কার করা উচিত যারা বিগত দিনে দলের বিরুদ্ধে গিয়ে স্হানীয় ও জাতীয় নির্বাচন করেছেন। নুরুল হুদা মুকুট আরো বলেন, আ’লীগের দুঃসময়ে সুনামগঞ্জের রাজপথে থেকে লড়াই করেছি,দলকে আগলে রেখেছি। তখন কোন অতিথি পাখিকে সুনামগঞ্জের রাজপথে দেখা যায় নি। এখন আ’লীগের সু-সময়ে তারা উড়ে এসে জুড়ে বসেছেন। তিনি আরো বলেন, সুনামগঞ্জের রাজপথে বিএনপি এখন বড় বড় মিছিল বের করছে।

আর জেলা আ’লীগ সভাপতি ও সম্পাদক তারা এ সময় ঘাপটি মেরে বসে থাকেন। সামন আরও কঠিন সময় আসছে কিন্ত এদের দ্বারা শুধু সংগঠন দুর্বল করা সম্ভব। সামনে আমাদের জন্য কঠিন সময় আসছে। তাই জেলা আ’লীগকে আরো শক্তিশালী করতে তিনি নতুন কমিটি গঠনের আহব্বান জানান। নতুন নেতৃত্ব দরকার যারা বিএনপি জামাত কে মোকাবেলা করতে পারে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি রেজাউল কবির শামীম, সাংগঠনিক সম্পাদক বাবু শঙ্কর চন্দ্র দাস, আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. আব্দুল করিম, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এড. আজাদুল ইসলাম রতন, বন বিষয়ক সম্পাদক জাহাঙ্গীর চৌধুরী, মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক শীতেষ তালুকদার মঞ্জু, তাহিরপুর উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক অমল কান্তি কর, দিরাই পৌরসভার সাবেক মেয়র মোশারফ হোসন, সদস্য এড কল্লোল তালুকদার চপল, জেলা যুবলীগের সিনিয়র সদস্য সবুজ কান্তি দাস, যথীন্দ্র মোহন তালুকদার, প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

সুনামগঞ্জ জেলা আ’লীগ সভাপতি ও সম্পাদকের বক্তব্য অগঠনতান্ত্রিক বলেন মন্তব্য নুরুল হুদা মুকুট

আপডেট সময় : ০৪:৫৮:০৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

স্টাফ রিপোর্টারঃ সুনামগঞ্জ জেলা আ’লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী আলহাজ্ব নুরুল হুদা মুকুট বলেছেন, জেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দলীয় শৃঙ্খলা অমান্য করায় গঠনতন্ত্র অনুযায়ী আমাকে জেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি পদসহ দলীয় পদবী থেকে নাকি জেলা আ’লীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক অব্যাহতি প্রদান করেছেন।

সেই সাথে জেলা আ’লীগের কার্যনির্বাহী কমিটি জরুরী সভা আহব্বান করে সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত মোতাবেক আমাকে নাকি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদের মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের অনুরোধ জানানো হয়েছিল। তবে প্রকৃতপক্ষে ওই জরুরী সভায় এ বিষয়ে কোন আলোচনা হয় নি এবং কেউ আমাকে মনোনয়ন প্রত্যাহারের জন্য অনুরোধ ও করে নি। এছাড়াও এই সভায় কোরাম হয়নি। অনেক পদধারি সদস্যদের দাওয়াত করেননি।

জেলা আ’লীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের এ ধরনের বক্তব্য একটি নির্লজ্জ মিথ্যাচার যা অগঠনতান্ত্রিক, অগনতান্ত্রিক, ও এখতিয়ার বহির্ভূত। আমি এসব বে-আইনি কার্যক্রমের তীব্র নিন্দা জানাই। মঙ্গলবার সুনামগঞ্জ জেলা পাবলিক লাইব্রেরী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো জানান, গঠনতন্ত্রের ৪৬ ধারায় বর্ণিত আছে শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে অভিযুক্ত ব্যাক্তিকে কারন দর্শানোর জন্য সুযোগ দানে সাধারন সম্পাদক নোটিশ দিতে বাধ্য থাকবেন। কিন্তু আমাকে এখনো কারন দর্শানোর নোটিশ প্রদান করা হয় নি। নির্বাচনকে সামনে রেখে ভোটরদের বিভ্রান্ত করতেই তারা এ সকল কার্যকলাপ করছেন। তিনি আরো বলেন, আমি কোনদিন ও দলীয় প্রতিকের বিরুদ্ধে নির্বাচন করি নি। যদি আমার প্রতিদ্বন্ধি প্রার্থী দলীয় প্রতিক নৌকা পেতেন তাহলে আমি অবশ্যাই নির্বাচন বর্জন করতাম।

স্থানীয় ও জাতীয় নির্বাচনে জেলা আ’লীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক প্রকাশ্যে নৌকার বিরোধীতা করেছেন বলে তিনি অভিযোগ করেন। তিনি আরও বলেন আগে তাদের বহিষ্কার করা উচিত যারা বিগত দিনে দলের বিরুদ্ধে গিয়ে স্হানীয় ও জাতীয় নির্বাচন করেছেন। নুরুল হুদা মুকুট আরো বলেন, আ’লীগের দুঃসময়ে সুনামগঞ্জের রাজপথে থেকে লড়াই করেছি,দলকে আগলে রেখেছি। তখন কোন অতিথি পাখিকে সুনামগঞ্জের রাজপথে দেখা যায় নি। এখন আ’লীগের সু-সময়ে তারা উড়ে এসে জুড়ে বসেছেন। তিনি আরো বলেন, সুনামগঞ্জের রাজপথে বিএনপি এখন বড় বড় মিছিল বের করছে।

আর জেলা আ’লীগ সভাপতি ও সম্পাদক তারা এ সময় ঘাপটি মেরে বসে থাকেন। সামন আরও কঠিন সময় আসছে কিন্ত এদের দ্বারা শুধু সংগঠন দুর্বল করা সম্ভব। সামনে আমাদের জন্য কঠিন সময় আসছে। তাই জেলা আ’লীগকে আরো শক্তিশালী করতে তিনি নতুন কমিটি গঠনের আহব্বান জানান। নতুন নেতৃত্ব দরকার যারা বিএনপি জামাত কে মোকাবেলা করতে পারে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি রেজাউল কবির শামীম, সাংগঠনিক সম্পাদক বাবু শঙ্কর চন্দ্র দাস, আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. আব্দুল করিম, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এড. আজাদুল ইসলাম রতন, বন বিষয়ক সম্পাদক জাহাঙ্গীর চৌধুরী, মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক শীতেষ তালুকদার মঞ্জু, তাহিরপুর উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক অমল কান্তি কর, দিরাই পৌরসভার সাবেক মেয়র মোশারফ হোসন, সদস্য এড কল্লোল তালুকদার চপল, জেলা যুবলীগের সিনিয়র সদস্য সবুজ কান্তি দাস, যথীন্দ্র মোহন তালুকদার, প্রমুখ।